দুপুর ১২:৩৯,   শনিবার,   ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং,   ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ,   ২৭শে জমাদিউস-সানি, ১৪৪১ হিজরী

রাধারমণ দত্ত লোকসংস্কৃতির মহারাজা : জেলা প্রশাসক

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বলেন, রাধারমণ দত্ত লোকসংস্কৃতির মহারাজা। তিনি এদেশের লোকসংস্কৃতির ভান্ডার কে সমৃদ্ধ করেছেন। রাধারমণ তার কর্মের মধ্যে প্রেম বিরহ মানুষের সহজাত প্রবৃত্তির কথা বলে গেছেন। আমরা ১০৪ বছর পরও তাঁর কর্ম ও সৃষ্টি নিয়ে আলোচনা করছি। সরকারি ভাবে তাঁর সৃষ্টি কর্ম নিয়ে পৃষ্ঠপোষকতা করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, কিছু সংখ্যক ভূমি খেকো মানুষের কারণে রাধারমণ দত্তের কমপ্লেক্স বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। আমরা এ ক্ষণজন্মা পুরুষের স্মৃতি ধরে রাখতে রাধারমণ কমপ্লেক্স নির্মাণ করব।
তিনি সোমবার (১১ নভেম্বর) রাতে রাধারমণ দত্ত পুরকায়স্থের ১০৪ তম প্রয়াণ দিবস উপলক্ষে রাধারমণ সমাজ কল্যাণ সাংস্কৃতিক পরিষদের উদ্যোগে দুই দিন ব্যাপী অনুষ্ঠানের প্রথম দিনে সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার কেশবপুর গ্রামে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন।
জগন্নাথপুর পৌর সভার প্যানেল মেয়র সফিকুল হক এর সভাপতিত্বে ও শিক্ষক সালেহা পারভীনের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বিপিএম, জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বিজন কুমার দেব।
অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য দেন, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক তাজিবুর রহমান,মুল প্রবন্ধ পাঠ করেন রাধারমণ অনুরাগী শিক্ষক মোশাররফ হোসেন।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জেলা পরিষদ সদস্য মাহাতাবুল হাসান সমুজ, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান,সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সার্কেল (জগন্নাথপুর) মাহমুদুল হাসান চৌধুরী, জগন্নাথপুর থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ওসি হারুন রশীদ চৌধুরী। পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।



error: Content is protected !!