রাত ১:২৮,   বৃহস্পতিবার,   ২৫শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

তাহিরপুরে শারিরীক দূরত্ব না মেনেই ভাতা উত্তোলন!

তাহিরপুর প্রতিনিধি :
করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাচল চলাচলের নির্দেশনা থাকলেও সাধারণ লোকজন এসব নির্দেশনা আমলেই নিচ্ছে না। বাজারের অলিগলি থেকে শুরু করে ব্যাংক পর্যন্ত একই দৃশ্য হরহামেশাই দেখা যাচ্ছে।
মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) দুটি ইউনিয়নের ৬টি ওয়ার্ড থেকে বিধবা ভাতা তুলতে আসা লোকজন শারীরিক দূরত্ব না মেনে গাদাগাদি করে লাইন ধরে দাঁড়িয়ে আছেন অবলীলায়! এমন দৃশ্য সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট কৃষি ব্যাংকের।
সরেজমিনে ব্যাংকের প্রধান গেইটে গিয়ে দেখা যায় সকাল থেকেই দীর্ঘ লাইন ধরে, একে অপরের সহিত গাদাগাদি করে ভাতা নেয়ার জন্য লোকজন অপেক্ষা করছে। ব্যাংকের একমাত্র গেইট, যেখানে গাদাগাদি করে সামাজিক দূরত্ব না মেনে লোকজন জটলা বেধে কেউ বসে, আবার কেউ দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছে। উপরের তলায় অবস্থিত ব্যাংকে প্রবেশ করার এই একটিই পথ! গ্রাহকরা আসা যাওয়া করবে সে উপায়ও নেই!
এই শাখায় নিয়মিত লেনদেন করে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন গ্রাহক জানান, আজ সকালে ব্যাংকে এসে দেখি, প্রবেশদ্বারে মানুষের জটলা। প্রবেশদ্বারে লোকজনের এমন জটলা দেখে ফিরে এসেছি। মানুষের ভিড় ঠেলে ব্যাংকের উপরে উঠবো, সে উপায়ও ছিলনা।
লোকজনকে সরানোর চেষ্টা করলেও কেউ মানছে না। কে কার আগে টাকা তুলে বাড়ি ফিরতে পারবে সে প্রতিযোগিতা চলছে, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা করে ব্যর্থ হচ্ছি, জানালেন দায়িত্বরত গার্ড আ. হান্নান।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, বাদাঘাট শাখা ব্যবস্থাপক দেলোয়ার জাহান চৌধুরী বলেন, আমরা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ চেষ্টা করছি শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে যেন ভাতা নেয়া হয় কিন্তু ভাতা নিতে আসা এসব লোকজনকে কোনোভাবেই সরানো যাচ্ছে না। বুঝাতে গিয়েও আমরা ব্যর্থ হয়েছি।
তিনি আরও বলেন, ব্যাংকে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করেই সীমিত পরিসরে লেনদেন করা সম্ভব হলেও এসব ভাতা উত্তোলন করতে আসা লোকজনকে শারিরীক দূরত্ব মানানো যাচ্ছে কোনভাবেই।