সকাল ১০:১১,   সোমবার,   ২২শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ৭ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৫ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

সংসদে সংশোধনী পাস ; সদরের দেখার হাওরে হচ্ছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়


বিশেষ প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় বিল জাতীয় সংসদে বিল পাশ হয়েছে।
বুধবার (১৮ নভেম্বর) জাতীয় সংসদে সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান মানিকের আনা সংশোধনী প্রস্তাবের মাধ্যমে এ বিল পাশ হয়। এ সংশোধনীর মাধ্যমে সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপনের জায়গা নিয়ে যে জঠিলতা তৈরি হয়েছিলে তা কেটে যাবে।
সংশোধনী অনুযায়ী, সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের আসানমারা সেতু সংলগ্ন দেখার হাওরে সরকারি খাস জমিতে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন হবে।
জেলা সদরে সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপনের জন্য মানবন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করেন সুনামগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ।
এর আগে একই বিল সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে সংশোধন এনে জেলার পরিবর্তে জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় করার প্রস্তাব আনা হয়।
পরিকল্পনা মন্ত্রী এমএ মান্নান জোর তৎপড়তা চালিয়েছেন দক্ষিণ সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জে সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য। এর পক্ষে জোরালো বক্তব্যও দিয়েছেন তিনি।
পরিস্থিতি জঠিল আকার ধারণ করলে ঢাকায় জেলা আওয়ামী লীগের একটি হোটেলে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সেই সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়, সদর উপজেলার আসানমারা সেতু সংলগ্ন দেখার হাওর পাড়ে সরকারি খাস জায়গায় স্থাপিত হবে এবং পূর্বের সিদ্বান্ত সংশোধনের জন্য প্রস্তাব তোলা হবে। এই প্রস্তাবের রেজুলেশন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নানের কাছে পৌছান সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মহিবুর রহমান মানিক ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন সহ জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা।
বুধবার জাতীয় সংসদে বিশ্ববিদ্যালয় বিলের সংশোধনী প্রস্তাব করেন সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান মানিক। পরে এই বিলটি সর্বসম্মতি ক্রমে পাশ হয়। যার ফলে দেখার হাওর পাড়ে বিশ্ববিদ্যালয় নিমার্ণে আর বাধা রইল না।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, আসানমারা সংলগ্ন যে স্থানটিতে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের প্রস্তাব করা হয়েছে তা সদর উপজেলায় পড়েছে। তবে, জায়গাটির অবস্থান আবার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার শেষ সীমানা লাগোয়া।
সুনামগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য মহিবুর রহমান জানান, সংশোধনী আনার মাধ্যমে জায়গার জঠিলতা কেটে গেল, প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা হাওরবাসীকে বিশ্ববিদ্যালয়টি উপহার দিয়েছেন। আমরা জননেত্রীর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।