দুপুর ১:১৪,   সোমবার,   ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৯শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

ছাতকে স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতির মুক্তির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল

নিউজ ডেস্ক :
গোবিন্দগঞ্জে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ওবায়দুর রউফ বাবলুর নিঃশর্ত মুক্তি এবং মামলা থেকে তার নাম প্রত্যাহারের দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার বিকেলে গোবিন্দগঞ্জ ডিগ্রি কলেজের সামনে এ প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এরআগে বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতাকর্মীরা খন্ড-খন্ড মিছিল নিয়ে গোবিন্দগঞ্জ ট্রাফিক পয়েন্ট এলাকায় জড়ো হতে থাকে।
পরে ওবায়দুর রউফ বাবলুর নিঃশর্ত মুক্তি দাবীতে একটি বিশাল মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি গোবিন্দগঞ্জ সাদা ব্রীজের মুখ হয়ে সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কলেজ গেটে এসে শেষ হয়।
উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সভাপতি মুহিবুর রহমান তালুকদার টুনুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুস শহিদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তি প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, সুনামগঞ্জ জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি সুহেব চৌধুরী।
প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক জুবের আহমদ অপু।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সভাপতি বাবুল রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক এড. বুরহান উদ্দিন, বিপ্লব সামন্ত, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আফজাল হোসেন, সাব্বির আহমদ, মুক্তিযোদ্ধা আজব আলী, হাছন আলী, ইউসূফ আলী, আয়াজ আলী, ছালিক মিয়া।
বক্তব্য রাখেন উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সভাপতি আবু সামা রাসেল, সাকের রহমান, রাসেল আহমদ, অলক সামন্ত, রঞ্জন কুমার দাস, শাহ আবু বক্কর, শাহ আবুল কাসেম হারুন, নজরুল ইসলাম, বকুল মিয়া, শফিক মিয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কবির আহমদ, সমুজ আলী, উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক তাজামুল হক রিপন প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, গোবিন্দগঞ্জে একটি বিচ্ছিন্ন সংঘর্ষের ঘটনায় ইয়াকুব আলী নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু ঘটে। এ সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রন করতে পুলিশের পাশাপাশি উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আলহাজ্ব ওবায়দুর রউফ বাবলু ওইদিন যথেষ্ট ভুমিকা রেখেছেন। তার দায়িত্বশীল ভুমিকা ওইদিন গোবিন্দগঞ্জের শত শত মানুষ প্রত্যক্ষ করেছে। একটি কুচক্রিমহল ইয়াকুব আলী হত্যাকান্ডকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করতে ষড়যন্ত্রমুলকভাবে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ওবায়দুর রউফ বাবলুকে আসামী করেছে।
এ মামলা থেকে ওবায়দুর রউফ বাবলুর নাম প্রত্যাহারসহ তার নিঃশর্ত মুক্তি দাবী করেছেন বক্তারা।
এসময় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মঈনুল হোসেন, কৃপেশ চন্দ, এনাম আহমদ, রাসেল মিয়া, নাজমুল হোসন, সম্পাদক মন্ডলীর আবু তাহের, মুহিব মিয়া, সাজুর আহমদ, কামাল উদ্দিন, হেলাল আহমদ, মামুন মিয়া দেলোয়ার হোসেন, মনছর আলী, কামরুল ইসলাম, ফয়ছল আহমদ, ছুঠন মিয়া, সদস্য আনসার আলী, সাকের আহমদ, দিলাল আহমদ, মঈনুল হোসেন, বদর উদ্দিন, আলী হোসেন, আব্দুল মতিন, দবির মিয়া, নাছির উদ্দিন, জয়নাল আবেদীন, আমির আলী, দিলোয়ার হোসেনসহ উপজেলা ও বিভিন্ন ইউনিয়নের স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।