সকাল ৬:১৮,   বুধবার,   ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৩ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

জগন্নাথপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তরুণীকে ধর্ষণ, আটক ৪

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে এক তরুণীকে দল বেঁধে ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় পুলিশ চারজনকে আটক করে বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) সুনামগঞ্জ জেল হাজতে পাঠিয়েছে।
আটককৃতরা হলেন, উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন (২৫), হাসিনাবাদ এলাকার পাখি মিয়ার ছেলে ছানা মিয়া (২৬), নেত্রকোনা জেলার মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে অনিক মিয়া (১৯) ও বড় মোহাম্মদপুর গ্রামের আব্দুল মানিকের ছেলে সুহেল মিয়া (২৪)।
অভিযোগ পত্র ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জগন্নাথপুর পৌরসভার হাসিনাবাদ এলাকায় ১৮ বছরের এক তরুণীর সঙ্গে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলেন উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন। এক পর্যায়ে প্রেমের ফাঁদে পেলে গত রবিবার (৫ জুলাই) রাতে ওই তরুণীকে তার বাড়ি থেকে বের করে এনে আনোয়ার হোসেন উপজেলা সদরের জগন্নাথপুর বাজারের একটি আবাসিক হোটেলে গিয়ে উঠেন। মেয়েটিকে হোটেলের একটি কক্ষে আটকে রেখে রাতভর আনোয়ার মিয়াসহ তার চার বন্ধু মিলে ধর্ষণ করেন। তিনদিন হোটেলের কক্ষে বন্দি থাকার পর গতকাল বুধবার (৮ জুলাই) সকালের দিকে মেয়েটি কৌশলে হোটেল কক্ষ থেকে বের হয়ে বাড়িতে গিয়ে পরিবারকে বিষয়টি জানায়।
এ বিষয়ে বুধবার বিকেলে ওই তরুণী বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে জগন্নাথপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ অভিযোগের প্রেক্ষিতে বুধবার রাতে অভিযান চালিয়ে চারজনকে আটক করে। তবে অপর অভিযুক্ত হাসিনাবাদ এলাকার ছনর মিয়ার ছেলে সেলন মিয়া (২০) এখনও পলাতক।
জগন্নাথপুর থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) অনিক দেব বলেন, তরুণীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে চারজনকে আটক করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আর ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।