রাত ৯:২৫,   বৃহস্পতিবার,   ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

তাহিরপুরে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১৪৩ বস্তা চাল উদ্ধার


তাহিরপুর প্রতিনিধি :
তাহিরপুর উপজেলার বড়দল (দক্ষিণ) ইউনিয়নের জামতলা বাজারে দরিদ্রদের জন্য সরকারের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলারের ঘর থেকে চুরি যাওয়া ১৫ বস্তা চালের মধ্যে ১৪৩ কেজি চাল উদ্ধার করেছে তাহিরপুর খাদ্য গুদাম কর্তৃপক্ষ ও তাহিরপুর থানার পুলিশ। এদিকে এ ঘটনায় কোনো আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে স্থানীয় একটি চক্র।
বড়দল (দক্ষিণ) ইউনিয়নের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ডিলার হারুন মিয়া জানিয়েছেন, গতকাল বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) ভোরে জামতলা বাজারস্থ তার গুদাম থেকে ১৫ বস্তা চাল চুরি হয়। বিষয়টি তিনি জানতে পেরে উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মফিজুর রহমানকে অবগত করেন। পরে হারুন মিয়া লোক মারফত জানতে পারেন বড়দল (দক্ষিণ) ইউনিয়নের আমবাড়ী গ্রামের মৃত সাজ্জাত আলীর ছেলে আব্দুল কুদ্দুছ তার গুদাম থেকে চাল চুরি করেছেন।
খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার রাতে তাহিরপুর উপজেলা খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মফিজুর রহমান ও তাহিরপুর থানার বাদাঘাট পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই মো. মাহমুদুল হাসানের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে দক্ষিণ বড়দল ইউনিয়নের আমবাড়ী গ্রামের আ. কুদ্দুছের বাড়ির পাশের একটি ঘর থেকে খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির ১৪৩ কেজি চাল উদ্ধার করেন। পরে উদ্ধারকৃত চাল জামতলা বণিক সমিতির সভাপতি মুছা মিয়ার জিম্মায় রাখা হয়। চাল উদ্ধারের একদিন পেরিয়ে গেলেও এ ঘটনায় মামলা দায়ের না করে চুরির ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।
এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে অভিযুক্ত আ. কুদ্দুছের মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।
তাহিরপুর উপজেলার খাদ্য নিয়ন্ত্রক বি এম মুশফিকুর রহমান চাল উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আজ (শুক্রবার) ডিলার হারুন মিয়া বাদী হয়ে এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত তিনি মামলা দায়ের করেননি। আমি শুনেছি বিষয়টি স্থানীয়ভাবে নিষ্পত্তি করার চেষ্টা চলছে।’
এ বিষয়ে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. মুস্তফা জাকারিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘বিষয়টি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’