দুপুর ১:৩১,   সোমবার,   ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৯শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

জগন্নাথপুরে নদী দখল করে নির্মিত ৩৭ স্থাপনা উচ্ছেদ

স্টাফ রিপোর্টার :
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলায় মাগুরা নদীর উপর নির্মিত সেতুর পূর্ব পাশের সরকারি জায়গা দখল করা অবৈধ দোকানপাট ভেঙ্গে দিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। বুধবার সকালে উপজেলা সৈয়দপুর গ্রামে নদীর পাড় সংলগ্ন এলাকায় অবৈধভাবে দখল করায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো. ইয়াসির আরাফাতের নেতৃত্বে এসকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।
এসময় নদীর পাড় সংলগ্ন মোট ৩৭টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়, যার বাজার মূল্য ১ কোটি টাকা। তাছাড়া সৈয়দপুরের মল্লিকপুর এলাকার সরকারি রাস্তা দখল করে শামীম আহমেদ বাড়ি নির্মাণ করায় বাড়ির প্রাচীর ভেঙে ফেলা হয়।
জানা যায়, উপজেলার সৈয়দপুর গ্রামের মাগুরা নদীর নির্মিত সেতুর পুর্ব পাশের সরকারি জায়গা ও পাবলিক টয়লেট দখল করে দোকানপাট বানান স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা শেখ সালেহ আহমদ। আওয়ামী লীগের প্রভাব খাটিয়ে অবৈধভাবে নদীর পাড় দখল করে অবৈধভাবে স্থাপনা তৈরি করেছিলেন। কয়েকবার স্থানীয়রা উপজেলা প্রশাসনকে এসকল অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের জন্য বলা হলেও কোন পদক্ষেপ না নেওয়ায় স্থানীয়রা পরবর্তী জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বরারবর আবেদন করেন। এসময় জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুজ আলম মাসুমকে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া নির্দেশনা প্রদান করেন।
পরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সরকারি জায়গা অবৈধভাবে দখল হওয়ার সত্যতা প্রমাণ পাওয়ার পর ওই দখলদার ব্যাক্তি শেখ সালেহ আহমদকে নিজ উদ্যোগে স্থাপনাগুলো ভেঙে দেওয়া জন্য দুইদিনের সময় প্রদান করা হয়। পরবর্তীতে দখলদার শেখ সালেহ আহমেদ কিছু না করায় বুধবার সকালে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. ইয়াসির আরাফাত অভিযান পরিচালনা করে এসকল অবৈধ স্থাপনা ভেঙে দেন।
এব্যপারে উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইয়াসির আরাফাত বলেন, আমরা নদী খাল দখলমুক্ত রাখার বিষয়ে সবাইকে সচেতন থাকতে বলেছি। আমরা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের অভিযান নিয়মিত পরিচালনা করবো। সরকারি জায়গা দখল করে যেনো কেউ কিছু তৈরি করতে না পারে সেদিকে সবাইকে লক্ষ্য রাখার নির্দেশনা প্রদান করেন তিনি।