রাত ৮:২৭,   বৃহস্পতিবার,   ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

দিরাইয়ে ডাক্তারদের পিপিই দিলেন সাংসদ জয়া সেনগুপ্তা

দিরাই প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে চলমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উপজেলা প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় এবং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে কর্মরত ডাক্তার, সেবাদানকারীদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই) প্রদান করেছেন ড. জয়া সেনগুপ্তা এমপি।
রোববার (৫ এপ্রিল) বেলা ১টায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে উপস্থিত হয়ে উনার ব্যক্তিগত তহবিল ও গ্রো-ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা সৌমেন সেন গুপ্তের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কাছে ৮০টি পিপিই, ৩শ মাস্ক ও ১শ হ্যান্ড গ্লাভস তুলে দেন তিনি।
এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সফি উল্লাহ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়, সহ সভাপতি এ্যাডভোকেট সোহেল আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট অভিরাম তালুকদার, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান তালুকদার, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাহজাহান সরদার, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান লিটন, পৌরসভার প্যানেল মেয়র বিশ^জিৎ রায়, উপজেলা যুবলীগ নেতা লালন মিয়া, কামরুজ্জামান, কামনাশীষ রায়, পৌর যুবলীগের সভাপতি সারোয়ার আহমদ, গ্রো-ফাউন্ডেশনের সমন্বয়কারী আনাস আহমেদ প্রমুখ।
এর আগে বেলা ১২টায় উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে উপজেলা প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও গণমাধ্যম কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেন ড. জয়া সেনগুপ্তা।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সফি উল্লার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন সহকারী কমিশনার ভূমি ফারিয়া সুলতানা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাহবুবুর রহমান, থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কেএম নজরুল ইসলাম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নজরুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রদীপ রায়, সহ সভাপতি এ্যাডভোকেট সোহেল আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট অভিরাম তালুকদার, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান তালুকদার, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শাহজাহান সরদার, প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান লিটন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু হানিফ চৌধুরী প্রমুখ।
মতবিনিময়কালে ড. জয়া সেনগুপ্তা বলেন, করোনা পরিস্থিতি নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সবাইকে সচেতন হতে হবে। সরকার আপনাদের পাশে রয়েছে। সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করছেন। ইতিমধ্যে প্রতিটি উপজেলায় চাল ও নগদ টাকা পৌঁছে গেছে। পর্যায়ক্রমে তা বিতরণ করা হচ্ছে। করোনার কারণে কেউ যেন অনাহারে না থাকে সেজন্য সরকারের পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদেরও এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি। ত্রাণ কাজে কোন ধরণের অনিয়ম সহ্য করা হবে না। অনিয়ম হলেই সাথে সাথে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।