দুপুর ১২:৪৬,   সোমবার,   ২৭শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৯শে জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

নেত্রকোনায় ট্রলার ডুবির ঘটনায় সুনামগঞ্জের ৯ জনের মৃত্যু

নিউজ সুনামগঞ্জ ডেস্ক :
নেত্রকোনার কলমাকান্দায় যাত্রীবাহী ট্রলার ডুবির ঘটনায় বুধবার বিকেল তিনটা পযন্ত পাঁচ শিশু তিন নারী ও দুই পুরুষের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এর মধ্য দুই পরিবারের ছয়জন রয়েছে। জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে পাঁচ জন।
প্রশাসন, পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সুনামগঞ্জের মধ্যনগর থেকে নেত্রকোনা সদরের ঠাকুরাকোণা ঘাটের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসার পর সকাল এগারোটার দিকে কলমাকান্দা উপজেলার বড়কাপন ইউনিয়নের রাজনগর এলাকার গুমাই নদীতে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি বালুবাহী ট্রলারের ধাক্কায় ডুবে যায়। পরে স্থানীয়রা এসে দশ জনের লাশ উদ্ধার করে। উদ্ধার হওয়া নিহতরা হচ্ছেন, ধর্মপাশা উপজেলার ইনাতনগর গ্রামের ওয়াহাব আলীর স্ত্রী লুৎফুন্নাহার ও আড়াই বছরের ছেলে ইয়াসিন, এই পরিবারের মনিরা (৫) নামের আরো এক শিশু নিখোঁজ রয়েছে। নেত্রকোনা সদরের মেদনী গ্রামের আবুচানের স্ত্রী হামিদা খাতুন (৪৫) ধর্মপাশা উপজেলার ইনাতনগর গ্রামের সাহেব আলীর স্ত্রী মজিদা আক্তার (৫০) মধ্যনগর এলাকার কামারউড়া গ্রামের আলমগীর হোসেনের ছেলে অনিক (৭) একই গ্রামের হাবিকুলের স্ত্রী লাকি আক্তার (৩০) ও তার দুই শিশু টুম্পা আক্তার (৫) ও জাহিদ হোসেন (৩) ধর্মপাশা উপজেলার জামালপুর গ্রামের জোবাইর এর ছেলে মোজাহিদ (৪) এবং একই গ্রামের আব্দুল করিমের সুলতানা আক্তার (৪৫)।
এছাড়া আরো চারজন নিখোঁজের সন্ধান পাওয়া গেছে। নিখোঁজরা হচ্ছেন মনিরা (৫) ইনাতনগরের রতন মিয়া (৩৫) একই এলাকার ফাতেমা আক্তার (৩৫) ও মোফাজ্জল নামের একজন নিখোঁজ রয়েছেন।
নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক কাজি মোঃ আবদুর রহমান জানান, পাঁচ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। দশ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। চার জন নিখোঁজের পরিচয় পাওয়া গেছে। এছাড়া আরো দশ থেকে পনেরো জনের মতো নিখোঁজ রয়েছে বলে স্থানীয়রা বলছেন। উদ্ধার তৎপরতা চলছে।