রাত ৮:৪৬,   বৃহস্পতিবার,   ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

বিধবা কৃষাণীর ধান কেটে দিল রোভার স্কাউট দল

দিরাই প্রতিনিধি :
সুনামগঞ্জ দিরাইয়ে হাওরে হাওরে কৃষক কৃষাণীর পাকা বোরো ধান দোলা দিচ্ছে। করোনা পরিস্থিতিতে তীব্র শ্রমিক সংকটে ব্যাহত হচ্ছে ধান কাটা।
উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের ধল আশ্রম গ্রামের বিধবা কৃষাণী বিজয়া রানী রায়ও নিজের জমির পাকা ধান শ্রমিক সংকটে কাটতে না পেরে চোখে অন্ধকার দেখছিলেন।
এই সংবাদ জানতে পেরে কৃষাণীর পাশে দাঁড়ায় দিরাই সরকারি কলেজ রোভার স্কাউট দল। কলেজের প্রভাষক মিজানুর রহমান পারভেজের অনুপ্রেরণায় মঙ্গলবার সকাল থেকে সিনিয়র রোভার মেট শরীফ রাব্বানীর নেতৃত্বে রোভার স্কাউট দলের সদস্য সোয়েব আহমদ, পাবেল আহমদ, নয়ন মিয়া, সাগর আহমেদ, মিনহাজ আহমেদ, শরীফ উদ্দিন কৃষাণীর প্রায় অর্ধ একর জমির পাকা ধান স্বেচ্ছাশ্রমে কেটে দেন। শুধু তাই নয় কাটার পর তাদের নিজের অর্থে মাড়াই করে বিধবা কৃষাণীর হাতে ধান তুলে দেয়।
এতে যারপরনাই খুশি কৃষাণী বিজয়া রানী রায়।
কৃষাণী বিজয়া রানী রায় বলেন, আমার স্বামী মারা গেছেন দশ বছর আগে, একমাত্র পুত্র সেও মানসিক প্রতিবন্ধী। জমির পাকা ধান নিয়ে দুশ্চিন্তায় ছিলাম, শ্রমিক পাচ্ছিলাম না। কলেজের ছেলেরা আমার ধান কেটে মাড়াই করে দিয়ে আমার ভাবনা দূর করে দিয়েছে। এতে আমার ধান কাটা ও মাড়াই খরচও বেচে গেছে। তারা আমার যে উপকার করেছে, আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আশীর্বাদ করি, সৃষ্টিকর্তা তাদের মঙ্গল করবেন।
প্রভাষক মিজানুর রহমান পারভেজ বলেন, আমাদের দুই স্কাউট সদস্যের মাধ্যমে সংবাদটি পাই। ছেলেদের সাথে আলোচনা করে আমরা উনার জমির পাকা ধান কেটে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। এই দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়ানো প্রত্যেকেরই দায়িত্ব।