রাত ৮:৫৫,   বৃহস্পতিবার,   ২৩শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ,   ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ,   ১৫ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

সুনামগ‌ঞ্জের হবু ক‌নে‌কে আং‌টি পরা‌তে যা‌চ্ছি‌লেন বরসহ নিহত ৯জন

নিউজ সুনামগঞ্জ ডেস্ক :
কদিন আগেই বিয়ে ঠিক হয় ইমনের। পরিবার ভাসছিল খুশির জোয়ারে। হবু বউকে আংটি পরাতে তাই ছিল যত আয়োজন। ভোরে উঠেই নারায়াণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে পরিবারের সদস্যরা ভাড়া করা মাইক্রোবাসে যাচ্ছিলেন সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে। কিন্তু সেই যাত্রা থেমে গেলো হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ। পরানো হলো না আংটি।
সড়ক দুর্ঘটনা কেড়ে নিল হবু বরসহ নয়টি তাজা প্রাণ।
নিহত নয়জনের মধ্যে সাতজনের নাম পাওয়া গেছে। তারা হলেন- বর ইমন খান ও তার বাবা আব্বাস উদ্দিন। তাদের স্থায়ী ঠিকানা বরিশাল। অন্য পাঁচজন হলেন- রাজীব, মহসিন, রাব্বী, আসমা ও সুমনা। নিহতরা সবাই কাছের আত্মীয়। এদের মধ্যে সুমনার মৃত্যু হয় সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়। অন্য আটজনের মৃত্যু হয় ঘটনাস্থলেই। 
শেরপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এরশাদুল হক ভূঁইয়া বাংলানিউজকে জানান, নিহতদের পরিবারের সদস্যরা মোবাইলফোনে পুলিশকে জানিয়েছেন তারা ইমনের সঙ্গে বিয়ের জন্য ঠিক করা মেয়েকে আংটি পরাতে সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে যাচ্ছিলেন। পথে দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ফতুল্লা থেকে নিহতদের স্বজনরা নবীগঞ্জের উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছেন। তারা এলেই মরদেহ হস্তান্তর করা হবে।
শুক্রবার (৬ মার্চ) ভোর ৬টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে কান্দিগাঁও এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। অতিরিক্ত যাত্রী অর্থাৎ, ১২ জন নিয়ে সিলেটের দিকে যাচ্ছিল মাইক্রেবাসটি। কান্দিগাঁও এলাকায় গেলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পাশে একটি গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগে এবং আগুন ধরে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই নারী ও শিশুসহ আটজন নিহত হন। আহত হন আরও চারজন। পরবর্তী সময়ে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় আরও এক নারীর।